শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে ।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।নতুন আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৫ বছরের সাজা ও ৫লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে সড়ক পরিবহন আইনের এ খসড়া অনুমোদন দেয়া হয়।সোমবার সকাল ১০টায় সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।বেপরোয়াভাবে বা অবহেলা করে গাড়ি চালানোর কারণে কেউ আহত বা নিহত হলে দণ্ডবিধির ৩০৪ (খ) ধারায় মামলা দায়ের হবে।আর এই ধারায় সাজা সর্বোচ্চ ৫বছর কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ড এবং সর্বোচ্চ ৫লাখ টাকা জরিমানা বিধান রেখেছে। বর্তমান এই আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৩বছর কারাদণ্ডের বিধান ছিল ।

তবে গাড়ি চালানোর কারণে কারো নিহত হওয়ার ঘটনা তদন্তে হত্যা বলে প্রমাণিত হলে ফৌজদারি আইনে মৃত্যুদণ্ডের বিধান হতে পারে।আইনে বলা হয়েছে গাড়ি চালানোর লাইসেন্স পেতে হলে অষ্টম শ্রেণি পাস ও ১৮ বছর এর ওপর হতে হবে। পেশাদার লাইসেন্সের জন্য ২১ বছর এর ওপর হতে হবে।এছাড়া লাইসেন্সে প্রাপ্ত চালকের জন্য থাকবে ১২টি পয়েন্ট, অপরাধ করলে পয়েন্ট কাটা যাবে। এভাবে ১২ পয়েন্ট শেষ হয়ে গেলে লাইসেন্স বাতিলত,বলে গণ্য হবে ।অপরদিকে কোনো অপরাধী ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবেন না। আগে যেসব অপরাধী লাইসেন্স পেয়েছে তা বাতিল করা হবে।

চূড়ান্ত খসড়া আইনে যা আছে:

আইনানুযায়ী গাড়ি চালানোর সময় কেউ মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন না,করলে সর্বোচ্চ ১মাসের কারাদণ্ড বা ৫ হাজার টাকা জরিমানা উভয় দণ্ডের বিধান থাকবে ।ফুটপাতের ওপর দিয়ে কোনো ধরনের মোটর যান চলাচল করতে পারবে না,করলে ৩মাসের কারাদণ্ড বা ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। আগে গাড়ি চালকদের লেখাপড়ার বিষয়ে কিছু না থাকলেও নতুন আইন অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য কমপক্ষে অষ্টম শ্রেণি পাস হতে হবে। কন্ডাক্টর বা চালকের
সহযোগীকে কমপক্ষে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া থাকতে হবে। যদি কেউ ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালায় তবে তাকে সর্বোচ্চ ৬ মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ৫০হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। কেউ এই অপরাধ করলে তাকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করা যাবে। চালকের সহকারী কন্ডাক্টরের লাইসেন্স থাকতে হবে । লাইসেন্স না থাকলে ১মাসের কারাদণ্ড বা সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। জাল ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যবহার করলে আগে শাস্তি ছিল সর্বোচ্চ ২ বছরের কারাদণ্ড বা ১লাখ টাকা সর্বোচ্চ জরিমানা। প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে মূল শাস্তি কারাদণ্ড আগের মতোই আছে,
জরিমানা ৩ লাখ টাকা করা হয়েছে।

২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের জাবালে নূর পরিবহনের বাস চাপায় দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হন। নিহত হয়ার পরের দিন থেকে রাজধানীর সড়কে ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালনা বন্ধসহ ৯ দফা দাবি
আদায়ে আন্দোলনে নামে শিক্ষার্থীরা।

ইত্তেফাক

Facebook Comments
(Visited 162 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: